আজ বুধবার,১৫ই আশ্বিন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ,৩০শে সেপ্টেম্বর ২০২০ খ্রিস্টাব্দ,রাত ৪:৩৯

কানাডায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্কুল চালু

Print This Post Print This Post

রাজীব আহসান, কানাডা :
করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে গত কয়েক মাস বন্ধ থাকার পর সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে কানাডার কিছু স্কুল খুলেছে। বাকি স্কুল ৮ সেপ্টেম্বর থেকে চালু হচ্ছে। কানাডার বিভিন্ন প্রদেশে ধীরে ধীরে সব কিছু আবার স্বাভাবিক পর্যায়ে ফিরে আসতে শুরু করেছে। কিন্তু করোনা নিয়ে মানুষের মধ্যে আতঙ্ক আর শঙ্কা রয়েই গেছে। পুনরায় স্কুল খুলে দেয়ার পরিকল্পনায় অনেক অভিভাবকই উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। তাদের অনেকেই মনে করছেন, পরিস্থিতি সম্পূর্ণভাবে স্বাভাবিক হয়ে এলেই কেবল তাদের সন্তানদের স্কুলে পাঠাবেন। তবে শ্রেণিকক্ষে শিক্ষার্থীদের সামাজিক দূরত্ব এবং শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও কর্মচারীদের সুরক্ষা নিশ্চিত করার জন্য ইতিমধ্যে নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে স্কুল বোর্ডগুলো। সংক্রমণ থেকে বাঁচতে শ্রেণিকক্ষের আকারের চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অবাধে বায়ু চলাচলের ব্যবস্থার ওপর জোর দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো বলেন, প্রদেশগুলো বিদ্যালয়ের ব্যাপারে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আমি জানি, অনেক অভিভাবক তাদের স্থানীয় স্কুল এবং স্কুল বোর্ডের পরিকল্পনা যত্নসহকারে অনুসরণ করছেন। স্কুলে ফেরার বিষয়ে সরকারের সিদ্ধান্তে প্রবাসী বাঙালি অভিভাবকরাও শঙ্কিত। কেউ কেউ জানিয়েছেন, তারা সন্তানদের স্কুলে দেয়ার পরিবর্তে ঘরে বসে অনলাইনে ক্লাস করাবেন।

আলবার্টার ক্যালগেরিতে বসবাসরত প্রবাসী বাঙালি ও উন্নয়ন গবেষক ও সমাজতাত্ত্বিক বিশ্লেষক মাহমুদ হাসান দীপু বলেন, করোনাকালে গত সাত মাসের গৃহবন্দি জীবনে শিশু, কিশোরদের একাডেমিক শিক্ষার চেয়েও মানসিক সমৃদ্ধি ও বিকাশে যে অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে তার ভবিষ্যৎ প্রভাব নিয়ে আমি ভীষণ শঙ্কিত। তাই সরকার ও স্কুল কর্তৃপক্ষ করোনা প্রতিরোধের ব্যবস্থার প্রতি আস্থা রেখেই প্রিয় সন্তানদের স্কুলে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

আলবার্টা প্রদেশের ক্যালগেরির আশরাফুর রহমান বলেন, বাচ্চাদের স্কুলে যাওয়া নিয়ে আমরা শঙ্কিত। আমি মনে করি, এ ব্যাপারে সরকারকে আর ভেবেচিন্তে সিদ্ধান্ত নিতে হবে।

এ জাতীয় আরো সংবাদ