আজ মঙ্গলবার,২২শে অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ,৭ই ডিসেম্বর ২০২১ খ্রিস্টাব্দ,রাত ১১:৩৯

শৈলকুপার দিগনগর ইউনিয়নে নৌকা প্রত্যাশী ৭ জন

Print This Post Print This Post

নিজস্ব প্রতিবেদক :
আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে শৈলকূপা উপজেলার ৩নং দিগনগর ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন পেতে সক্রিয়ভাবে মাঠে রয়েছেন ৭ জন। এরই মধ্যে সম্ভাব্য প্রার্থীরা দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন। এ উপজেলায় এখনো তফসিল ঘোষণা না হলেও কে হবেন নৌকার মাঝি-তা নিয়ে চায়ের দোকান, বাজারঘাট ও পাড়া মহল্লায় সাধারন ভেটারদের মধ্যে উদ্দীপনা বিরাজ করছে।

দিগনগর ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৭ জন সম্ভাব্য মনোনয়ন প্রত্যাশীর মধ্যে বর্তমান চেয়ারম্যানসহ আওয়ামী লীগ এবং অঙ্গ সংগঠনের নেতা রয়েছেন। দিগনগর ইউনিয়ন ঘুরে এ তথ্য জানা গেছে।

উপজেলা নির্বাচন অফিস সুত্রে জানা গেছে, ৩নং দিনগর ইউনিয়নে ১৬টি গ্রাম ও মোট ১৫,৮৪০টি ভোট রয়েছে। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ৭,৯৭০ জন ও নারী ভোটার ৭,৮৭০ জন রয়েছে।

৩নং দিগনগর ইউনিয়নের সাধারন ভোটাররা জানান, ইউপি নির্বাচনে একজন সৎ, ন্যায়পরায়ন ও জনবান্ধব প্রকৃতির লোক আমরা চাই। বর্তমান চেয়ারম্যান তপন তাদের মধ্যে একজন, সাধারণ ভোটাররা তাকে সুখে-দুঃখে রাতদিনে কাছে পেয়েছেন। বিগত ৫ বছরে এই ইউনিয়নে বড় ধরনের কোন হানাহানি মারামারি হয়নি। শান্তিতেই কাটিয়েছেন অত্র ইউনিয়নবাসী। এ ধারা অব্যাহত থাকুক বলে জানিয়েনছেন সাধারণ ভোটাররা। তারা আরো জানান, নৌকা প্রতীকে যেই পাবে তাকেই তারা ভোট দিয়ে বিজয়ী করবেন বলেও জানিয়েছেন।

সূত্রে জানা গেছে, এই ইউনিয়নে দলীয় মনোনয়ন পেতে বর্তমান চেয়ারম্যান জিল্লুর রহমান তপন, জেলা ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য ও সাবেক চেয়ারম্যান তোজাম্মেল হক তোজাম, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ওয়াহাব-আল-ওয়াজেদ বিশ্বাস, সাধারন সম্পাদক মিজানুর রহমান জোয়ার্দার, দপ্তর সম্পাদক ও এমপির ভাগ্নে ইদ্রিস আলী, সাবেক চেয়ারম্যান পান্না খাঁর ছেলে ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য এ বি এম মুক্তারুজ্জামান খাঁন মুক্ত ও সদস্য আতিয়ার রহমান মাঠে সক্রিয় রয়েছেন।

দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী কয়েকজন জানান, তারা দীর্ঘদিন ধরে আওয়ামী রাজনীতির সাথে ওতপ্রোতভাবে সম্পৃক্ত রয়েছি। গণতান্ত্রিক পন্থায় দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী। এই ইউনিয়নে মনোনয়ন যেই পায়, তার পিছে তারা ভোট করবেন। দলীয় সিদ্ধান্তের বাহিরে তারা যাবো না বলে প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।

শৈলকুপা উপজেলা আহবায়ক কমিটির সদস্য ও আওয়ামী নেতা এবিএম নাসিরুল ইসলাম জানান, এই ইউনিয়নে গতবারের ন্যায় হইতো কেউ বিদ্রোহী প্রার্থী হবে না। আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা যাকে মনোনয়ন দিবেন তার পিছেই সবাই কাজ করবেন বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান জিল্লুর রহমান তপন বলেন, বিগত ৫ বছর ধরে চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছি। সরকারি সকল অনুদান সঠিকভাবে জনগণের মাঝে বন্টন করেছেন। করোনার মধ্যে জনগনের পাশে থেকে কাজ করেছি।দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারের তিনি শতভাগ আশাবাদী। মনোনয়ন না পেলে নির্বাচন করবেন না বলেও জানান তিনি।

অপরদিকে সম্ভাব্য ৭ জন মনোনয়ন প্রত্যাশী থাকলেও বর্তমান চেয়ারম্যান তপন ও সাবেক চেয়ারম্যান তোজামকেই মনোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারে এগিয়ে রাখছেন সাধারণ ভোটাররা।

এ জাতীয় আরো সংবাদ