আজ বুধবার,২৩শে অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ,৮ই ডিসেম্বর ২০২১ খ্রিস্টাব্দ,রাত ১২:৩৬

শৈলকুপার সারুটিয়া ইউনিয়নে নৌকা প্রত্যাশী ৩ জন

Print This Post Print This Post

নিজস্ব প্রতিবেদক :
আসন্ন ইউপি নির্বাচনে ৪র্থ ধাপের তফসিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন(ইসি)। তবে এখনো শৈলকুপা উপজেলার তফসিল ঘোষণা হয়নি। তবে তফসিল ঘোষণা না হলেও ইতোমধ্যে ইউপি নির্বাচনের আমেজ কিন্তু জমে উঠেছে। শৈলকূপা উপজেলার ৬নং সারুটিয়া ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন পেতে সক্রিয়ভাবে মাঠে রয়েছেন ৩ জন। এরই মধ্যে সম্ভাব্য প্রার্থীরা দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন।

সারুটিয়া ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৩ জন সম্ভাব্য মনোনয়ন প্রত্যাশীর মধ্যে বর্তমান চেয়ারম্যানসহ আওয়ামী লীগ নেতা রয়েছেন। সারুটিয়া ইউনিয়ন ঘুরে এ তথ্য জানা গেছে।

উপজেলা নির্বাচন অফিস সুত্রে জানা গেছে, ৬নং সারুটিয়া ইউনিয়নে ২২টি গ্রাম ও মোট ২০,৭৩৪টি ভোট রয়েছে। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ১০,৩৪১ জন ও নারী ভোটার ৯,৪২১ জন রয়েছে।

৬নং সারুটিয়া ইউনিয়নের সারুটিয়া, ভাটবাড়িয়া, কৃঞ্চনগর, পুরাতন বাখরবাহ, গোয়ালবাড়িয়া, ব্রহ্মপুর, বড় মৌকুড়ী, ছোট মৌকুড়ী এলাকার সাধারন ভোটাররা জানান, ইউপি নির্বাচনে একজন সৎ, ন্যায়পরায়ন ও জনবান্ধব প্রকৃতির জনপ্রতিনিধি আমরা চাই। বর্তমান চেয়ারম্যান জনবান্ধব হিসেবে অনেক জায়গায় অসংগতি ও জনরোষ আছে। প্রায় ৮৫ শতাংশ সাধারণ ভোটাররা পরিবর্তনের পক্ষে বলেও মতামত জানান। তারা আরো জানান, নৌকা প্রতীকে যেই পাবে তাকেই তারা ভোট দিয়ে বিজয়ী করবেন বলেও জানিয়েছেন।

সূত্রে জানা গেছে, এই ইউনিয়নে দলীয় মনোনয়ন পেতে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও বর্তমান চেয়ারম্যান মাহমুদুল হাসান মামুন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুল মান্নান ও উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক ও আওয়ামী নেতা জুলফিকার আলি কায়সার টিপু মাঠে সক্রিয় রয়েছেন।

মনোনয়ন প্রত্যাশী টিপু জানান, করোনাকালীন আগে ও পরে নিজস্ব অর্থায়নে জনগণের পাশে থেকেছি। রাতদিন বিপদে আপদে সাধারন ভোটারদের পাশে থাকার চেষ্টা করি। ইউনিয়নে ৮৫ শতাংশ সাধারন ভোটাররা আমাকে চেয়ারম্যান হিসেবে চাই। কারণ তারা অবহেলিত, নিষ্পেষিত ও নির্যাতিত। মনোনয়ন পেলে এভাবেই জনগণের পাশে থেকে সেবা করতে চাই। তিনি আরো জানান, নির্বাচনে মাঠে শেষ পর্যন্ত থাকার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। পাশাপাশি দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে উঠান বৈঠক ও সভা অব্যাহত রেখেছি।

নৌকার মনোনয়ন পাওয়ার আশাবাদ ব্যক্ত করে
আব্দুল মান্নান জানান, দীর্ঘদিন ধরে আওয়ামী রাজনীতির সাথৈ নিজেকে সম্পৃক্ত রেখেছি। তৃণমূল থেকে নিজেকে তিল তিল করে গড়ে তুলেছি। সাধারণ মানুষের চাওয়া পাওয়ার বিষয়ে অবগত হয়ে আমি মাঠে আছি। ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করে আসছি। মনোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারের শতভাগ আশাবাদী। মনোনয়ন না পেলে দলীয় সিদ্ধান্তে সাধুবাদ জানাবো। যেই পাক তার পিছে কাজ করবো ইনশাআল্লাহ। নৌকার বাহিরে না যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন তিনি।

বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান মামুন বলেন, বিগত প্রায় ৭ বছর ধরে সফলতার সাথে চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছি। দলীয় চেতনা থেকে কখনো আদর্শচ্যুত হইনি। সরকারি সকল অনুদান সঠিকভাবে জনগণের মাঝে বন্টন করেছি। করোনাকালীন সরকারি ও নিজস্ব অর্থায়নে জনগণের পাশে থেকেছি। দলীয় সকল কর্মকান্ড সফলভাবে সম্পন্ন করে আসছি। নৌকা পাওয়ার ব্যাপারে তিনি শতভাগ আশা ব্যক্ত করেন।

এ জাতীয় আরো সংবাদ