আজ শুক্রবার,৬ই জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ,২০শে মে ২০২২ খ্রিস্টাব্দ,সকাল ৬:১৪

হতাশায় ভেঙে পড়বেন না

Print This Post Print This Post

শৈলবার্তা ইসলামি ডেস্ক :
আমাদের এই স্বল্প জীবনে সুখ-দুঃখ,কষ্ট-বেদনা
সবকিছুরই সমাগম ঘটে। সুখের সময়ে আমাদের হৃদয় প্রফুল্ল হয়ে উঠে। আর দুঃখের সময়ে ভারাক্রান্ত হয়ে পড়ি।যখন কোনো হতাশা আমাদের আচ্ছন্ন করে ফেলে তখন আমাদের অনেকেই নিজেদেরকে কন্ট্রোল করতে পারি না। নিজের উপর নিরাশ হয়ে যাই। আমার দ্বারা কিছু হবে না ভেবে নিজেকে অপদার্থ ভাবতে শুরু করি।

আসলেই কী আমাদের দ্বারা কিছু হবে না?
আমাদের চারিদিকে তাকালে দেখতে পাই যে, যারা প্রকৃত সফল মানুষ,তাদের জীবনেও এমন হতাশা,দুঃখ-কষ্ট আসে। সেগুলো তারা রবের সাহায্যে নিয়ে এগিয়ে যায়।আমাদেরও তেমনটা করা উচিত।

জীবন নামক তরী চালানোর সময় অনেক ঝড়-ঝঞ্ঝা আসবে। জীবনের বাতি নিভু নিভু হয়ে যাবে।আবার জ্বলে উঠবে। তবুও নিরাশ না হয়ে রবের সাহায্যে ও ধৈর্য নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। সফলতা আসবেই ইনশাআল্লাহ।

পরীক্ষার আশানুরূপ ফলাফল না হলে কিংবা ব্যবসায় লোকসান হলে কিংবা অন্য কোনো ব্যর্থতায় আমরা ভেঙে পড়ি।হতাশায় নিমজ্জিত হয়ে পড়ি।হতাশ আর মনোকষ্টের কারণে অনেকে বেছে নেন আত্মহত্যার মতো জঘন্য ভুল পথ।বরবাদ করে ফেলে ইহকাল-পরকাল দুই কালই।

হতাশার এই সময়গুলোতে শুধু আল্লাহকে ডাকা উচিত আমাদের। মনের অযাচিত কষ্টগুলো রবকে বলতে হবে।তিনি আমাদের ডাকে সাড়া দিবেন।আমাদের অশান্ত মনটাকে শান্ত করে দিবেন।পৃথিবীর কোনো মানুষের কাছে যা বলা যায় না,তা আমাদের রবকে বলা যায়। পৃথিবীর মানুষের কাছে যা পাওয়া যায় না তা আমাদের রবের কাছে পাওয়া যায়।

আল্লাহ তায়ালা বলেন:
” আর যখন আমার বান্দা আমার সমন্ধে আপনাকে জিজ্ঞেস করে তখন তাদেরকে বলে দিন,নিশ্চয়ই আমি সন্নিকটবর্তী;

কোনো আহ্বানকারী যখনই আমাকে আহ্বান করে তখনই আমি তার আহ্বানে সাড়া দিয়ে থাকি; সুতরাং তারাও যেন আমার ডাকে সাড়া দেয় এবং আমাকে বিশ্বাস করে তাহলেই তারা সঠিক পথ প্রাপ্ত।[১]

আল্লাহ তায়ালা আমাদের হতাশামুক্ত জীবন দান করুন।(আমীন)

তথ্যসূত্র

[১]সূরা আল বাকারা,আয়াত ১৮৬

লেখক : মুহা: আব্দুল্লাহ আল মামুন, ঝিনাইদহ।
শিক্ষার্থী, জামিয়া আরাবিয়া হামিউস সুন্নাহ, মিরপুর-১১, ঢাকা।

এ জাতীয় আরো সংবাদ